০৫:৩৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রথমবার সজল-অধরা ‘ঋতুকামিনী’

  • দৈনিক টার্গেট
  • প্রকাশের সময় : ০৩:৪০:৫২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১ জুন ২০২৪
  • ৪৮ বার পঠিত

বাংলাদেশের নাটকের জনপ্রিয় মুখ অভিনেতা আবদুন নূর সজল। অভিনয়ে পরিণত এ অভিনেতা এখন ভালো গল্পের বাইরে নাটকে যেমন অভিনয় করছেন না, তেমন এখন ভীষণ মনোযোগী ভালো গল্পের সিনেমায়ও। বড়পর্দায় চ্যালেঞ্জিং চরিত্রে অভিনয় করার জন্য সজলের সবকিছুতে একটা অদ্ভুত পরিবর্তন এসেছে। পরিবর্তনটা এমন যে, ভালো গল্প চাই, ভালো চরিত্র চাই। এর কোনো বিকল্প নেই। অর্থাৎ এর বাইরে হলে তিনি কাজ করবেন না।

পরিচালক জাহিদ হোসেনের পরিচালনায় এর আগে একটি সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন সজল। যে কারণে এরই মধ্যে জাহিদ হোসেনের সঙ্গে তার কাজের একটা চমৎকার বোঝাপড়া তৈরি হয়েছে। তাই তারই পরিচালনায় প্রবল বিশ্বাস নিয়ে সজল আবারও একটি সিনেমার কাজ শুরু করেছেন। সিনেমার নাম ‘ঋতুকামিনী’।

এতে সজল অভিনয় করছেন জামাল চরিত্রে। তার বিপরীতে চিত্রনায়িকা অধরা কুমকুম চরিত্রে অভিনয় করছেন। অধরা নিজেও শুধুই খবরে নয়, ভালো কাজ দিয়ে দর্শকের সামনে আসতে চান। ঋতুকামিনী সিনেমাটি তেমনই একটি কাজ বলে মনে করেন তিনি। গল্প শুনে, নিজের চরিত্র সম্পর্কে জেনে এ ছবিতে যুক্ত হয়েছেন। সঙ্গে সজলকে পেয়ে কাজটার প্রতি আরও আগ্রহ বেড়েছে অধরার।

সিনেমাটিতে অভিনয় করা প্রসঙ্গে সজল বলেন, ‘জাহিদ হোসেন ভাই একজন পরিচ্ছন্ন নির্মাতা। খুব ভালো মনের মানুষ। তার নির্দেশনায় আমি এর আগে সুবর্ণভূমি সিনেমায় অভিনয় করেছিলাম। আমি বিশ্বাস করি ঋতুকামিনী আরও সুন্দর ছবি হবে। এতে জামাল চরিত্রটি এক কথায় অসাধারণ। আমি জামালের মাঝে ডুবে আছি। দিনরাত জামাল হিসেবেই ক্যামেরার সামনে অভিনয় করছি। এতটা প্রেমে পড়িনি এর আগে কোনো চরিত্রে। মন থেকে কৃতজ্ঞতা রইল জাহিদ ভাইয়ের প্রতি। অধরার সঙ্গে আমার প্রথম কাজ। কুমকুম চরিত্রে অধরাও যেন নিজেকে নতুন করে আবিষ্কার করছেন একজন অভিনেত্রী হিসেবে।’ অধরা বলেন, ‘সজল ভাই আমাদের ইন্ডাস্ট্রির একজন বড় মাপের অভিনেতা। আমি তার অভিনয়ের ফ্যান। তার সঙ্গে অভিনয় করে আমিও নিজেকে সমৃদ্ধ করছি। তিনি সহযোগিতাপরায়ণ একজন শিল্পী। আমাকে তার বিনয়, আচরণ ভীষণ মুগ্ধ করেছে। জামাল-কুমকুমের রসায়ন দেখার জন্য দর্শককে আমন্ত্রণ জানালাম।’

পরিচালক জানান, সজল-অধরা অভিনীত ঋতুকামিনী মুক্তি পেলে সিনেমাপ্রেমী দর্শকের প্রিয় হযে উঠবেন এ জুটি। ছবিটি চলতি বছরেই মুক্তির পরিকল্পনার কথাও জানান তিনি।

প্রথমবার সজল-অধরা ‘ঋতুকামিনী’

প্রকাশের সময় : ০৩:৪০:৫২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১ জুন ২০২৪

বাংলাদেশের নাটকের জনপ্রিয় মুখ অভিনেতা আবদুন নূর সজল। অভিনয়ে পরিণত এ অভিনেতা এখন ভালো গল্পের বাইরে নাটকে যেমন অভিনয় করছেন না, তেমন এখন ভীষণ মনোযোগী ভালো গল্পের সিনেমায়ও। বড়পর্দায় চ্যালেঞ্জিং চরিত্রে অভিনয় করার জন্য সজলের সবকিছুতে একটা অদ্ভুত পরিবর্তন এসেছে। পরিবর্তনটা এমন যে, ভালো গল্প চাই, ভালো চরিত্র চাই। এর কোনো বিকল্প নেই। অর্থাৎ এর বাইরে হলে তিনি কাজ করবেন না।

পরিচালক জাহিদ হোসেনের পরিচালনায় এর আগে একটি সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন সজল। যে কারণে এরই মধ্যে জাহিদ হোসেনের সঙ্গে তার কাজের একটা চমৎকার বোঝাপড়া তৈরি হয়েছে। তাই তারই পরিচালনায় প্রবল বিশ্বাস নিয়ে সজল আবারও একটি সিনেমার কাজ শুরু করেছেন। সিনেমার নাম ‘ঋতুকামিনী’।

এতে সজল অভিনয় করছেন জামাল চরিত্রে। তার বিপরীতে চিত্রনায়িকা অধরা কুমকুম চরিত্রে অভিনয় করছেন। অধরা নিজেও শুধুই খবরে নয়, ভালো কাজ দিয়ে দর্শকের সামনে আসতে চান। ঋতুকামিনী সিনেমাটি তেমনই একটি কাজ বলে মনে করেন তিনি। গল্প শুনে, নিজের চরিত্র সম্পর্কে জেনে এ ছবিতে যুক্ত হয়েছেন। সঙ্গে সজলকে পেয়ে কাজটার প্রতি আরও আগ্রহ বেড়েছে অধরার।

সিনেমাটিতে অভিনয় করা প্রসঙ্গে সজল বলেন, ‘জাহিদ হোসেন ভাই একজন পরিচ্ছন্ন নির্মাতা। খুব ভালো মনের মানুষ। তার নির্দেশনায় আমি এর আগে সুবর্ণভূমি সিনেমায় অভিনয় করেছিলাম। আমি বিশ্বাস করি ঋতুকামিনী আরও সুন্দর ছবি হবে। এতে জামাল চরিত্রটি এক কথায় অসাধারণ। আমি জামালের মাঝে ডুবে আছি। দিনরাত জামাল হিসেবেই ক্যামেরার সামনে অভিনয় করছি। এতটা প্রেমে পড়িনি এর আগে কোনো চরিত্রে। মন থেকে কৃতজ্ঞতা রইল জাহিদ ভাইয়ের প্রতি। অধরার সঙ্গে আমার প্রথম কাজ। কুমকুম চরিত্রে অধরাও যেন নিজেকে নতুন করে আবিষ্কার করছেন একজন অভিনেত্রী হিসেবে।’ অধরা বলেন, ‘সজল ভাই আমাদের ইন্ডাস্ট্রির একজন বড় মাপের অভিনেতা। আমি তার অভিনয়ের ফ্যান। তার সঙ্গে অভিনয় করে আমিও নিজেকে সমৃদ্ধ করছি। তিনি সহযোগিতাপরায়ণ একজন শিল্পী। আমাকে তার বিনয়, আচরণ ভীষণ মুগ্ধ করেছে। জামাল-কুমকুমের রসায়ন দেখার জন্য দর্শককে আমন্ত্রণ জানালাম।’

পরিচালক জানান, সজল-অধরা অভিনীত ঋতুকামিনী মুক্তি পেলে সিনেমাপ্রেমী দর্শকের প্রিয় হযে উঠবেন এ জুটি। ছবিটি চলতি বছরেই মুক্তির পরিকল্পনার কথাও জানান তিনি।